লিখেছেন
আদিল মাহমুদ

বৃহস্পতিবার। কোলের শিশুর মত শহরটা ঘুমিয়ে আছে। বাড়ির ছাদের গাছ—গুনছে মানুষের নিঃশ্বাস। শহরের বহুতলে হাত-পা মিলে বসে আছে অন্ধকার। কালো মাথায় সাদা আলোর মত জ্বলছে নিয়নবাতি। পাতাঝরা সিম্ফনি—অবিকৃত রয়ে গেছে ফুসফুসে। পথ ভুলে আমার কাঙাল কোলে আসছে ঝড়ো হাওয়া। ধীরে ধীরে ছুঁয়েছে অবয়ব—

পশ্চিম আকাশে একরাশ কালো ধোঁয়াশা মেঘ—অঝোরে নামছে বৃষ্টি। কচি পাতার বৃষ্টিস্নাত হাসিতে—জেগে ওঠেছে আন্দোলন। ভেজা রাস্তার ম্যুরালে—কৃষ্ণচূড়ার আড়াল থেকে ডেকেছে তিতির। জুঁইয়ের সুবাস গায়ে মেখে—সবুজ শ্যামল ঘাঁসে পা ডুবিয়ে—আষাঢ়ের কান্তিময়ী প্রেমানুভূতিতে হারাই। মনের সবটুকু রঙ ধুয়ে মুছে হয়েছে একাকার। প্রেমিকাহীন শরীরের নতুন শুদ্ধতা—মুগ্ধ ভালোবাসা।

ওদিকে বিড়াল পা’য়ে হেঁটে যাচ্ছে প্রেম। ফিরেও থাকায় না মন। নৈবেদ্য দেয় তাকে—

আমরা সাহিত্য চর্চাও করবো না, লেখকও তৈরি করবো না, সম্পাদনাও করবো না, কেবল প্রকাশ করবো স্বপ্ন আর সৌহার্দ্য।

আপনার লেখা আজেই পাঠিয়ে দিন শুভ্র কাগজে। এই কাগজ প্রকাশ করবে আপনার প্রীতি।